Home / তথ্য বিচিত্রা / কী, কেন, কখন, কোথায় / রেলগাড়ি আবিষ্কার – বিশ্বের বড় জাহাজ – নেপলস – খাজুরাহ | কী কেন কখন কোথায় 8
রেলগাড়ি আবিষ্কার বিশ্বের বড় জাহাজ নেপলস খাজুরাহ কী কেন কখন কোথায় 8

রেলগাড়ি আবিষ্কার – বিশ্বের বড় জাহাজ – নেপলস – খাজুরাহ | কী কেন কখন কোথায় 8

খাজুরাহ কী?

খাজুরাহ হলো ভারতের মধ্যযুগীয় মন্দির স্থাপত্য। দশম – একাদশ, শতকে ‘চান্দেলা’ রাজবংশের শাসনামলে এই মন্দির নগরী গড়ে ওঠে। এসময় ছোট বড় মিলিয়ে ৮৫ টি মন্দির নির্মিত হয়। চান্দেলা রাজবংশের পতনের পর অর্থাৎ প্রায় ১৪ শতকের মাঝামাঝি সময় থেকে স্থানটি ক্রমশ অতীত ঐতিহ্য হারিয়ে ফেলে। কালের পরিক্রমায় বেশিরভাগ মন্দিরই মাটির নিচে চাপা পড়ে যায়। ব্রিটিশ শাসনামলে প্রত্মতাত্ত্বিক খননের ফলে মন্দিরগুলো নতুন করে আবিষ্কৃত হয়। বর্তমানে টিকে থাকা মন্দিরগুলোর মধ্যে মোটামুটি ভালো অবস্থায় আছে ১২০১৪টি।

বিশ্বের বড় জাহাজ কোনটি?

বিশ্বের সবচেয়ে বড় এবং বিলাশবহুল জাহাজের নাম কুইন মেরী – ২। টাইটানিকের চেয়ে প্রায় সোয়া গুন বড় কুইন মেরী – ২ জাহাজটি তৈরি করেছে কার্পেসিয়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ক্যুনার্ড। প্রায় ৮০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয়ে জাহাজটি তৈরি করা হয়। ফ্রান্সের সাঁ নাজায়েরে ‘অ্যালস্টম শাতিয়ার্স ডিএল আটলান্টিক’ শিপইয়ার্ডে। এর স্ট্যান্ডার্ড কেবিনগুলো আয়তন ১৯৪ বর্গফুট এবং ডিলার কেবিনগুলোর উচ্চতা ২৯১ বর্গফুট। জাহাজটিতে ১৬৫০ বর্গফুটের ৫ টি দোতলা ডুপ্লেক্স অ্যাপার্টমেন্টও রয়েছে। শুধু তাই নয় একটি কলেজ এবং কম্পিউটার, ভাষাশিক্ষা ও রান্না শেখানোর জন্য রয়েছে সাতটি মাল্টিপারপাস ক্লাসরুম।

নেপলস কেন বিখ্যাত?

নেপলস ইতালির প্রসিদ্ধ শিল্প বন্দর। এখানে জাহাজ, মোটরকার, টেক্সটাইল, কাগজ ও খাদ্য প্রস্তূতকারী কল – কারখানা নির্মাণ করা হয়েছে। ভূ মধ্যসাগর তীরবর্তী এই শিল্প শহরটির লোকসংখ্যা প্রায় ১২ লক্ষ। এর উপকূলবর্তী দ্বীপ ’কাপ্রি’ একটি বিখ্যাত পর্যটন কেন্দ্র। শহরের উপকন্ঠে ভিসুভিয়াস আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে বিধ্বস্ত পম্পেই নগরের ধ্বংসাবশেষ সংরক্ষিত আছে। ইতালির সমৃদ্ধ শহরগুলোর মধ্যে নেপলস তৃতীয় অবস্থায় রয়েছে।

রেলগাড়ি আবিষ্কার হলো কীভাবে?

১৭৬৯ সালে নিকোলাস কুগনন্টের রোড ট্রাক্টর আবিষ্কারকে রেলগাড়ি তৈরির প্রথম উদ্যোগ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ১৮০২ সালে রিচার্ড ট্রেভিথিক রেল লাইনের উপর দিয়ে চালানোর মতো বাষ্পীয় শকট তৈরি করেন। ১৮১২ সালে জন ফ্লেন কিনশপ প্রথম ’মাস প্রডিউজড লোকোমেটিভ’ আবিষ্কার করেন। ১৮২৯ সালে রবার্ট স্টিভেনসন ও তার পিতা জর্জ তৈরি করেন দ্রুতগামী রেলগাড়ী রকেট। এর গতি ছিল ঘন্টায় ১৬ মাইল। ঐ বছরেই পিটার কুপার তৈরি করেন প্রথম যাত্রীবাহী রেলগাড়ি। আমেরিকার বাল্টিমোর ও ওডিও লাইনের মধ্যে চলাচলকারী এই রেলগাড়ির নাম ছিল ‘টম থাম্ব’ দি ম্যালেট অ্যার্টিকুলেটেড লোকোমেটিভ ১৮৮৭ সালে প্রথম ইউরোপে আত্মপ্রকাশ করে। ১৮৯৫ সালে তৈরি হয় প্রথম ইলেকট্রিক ট্রেন। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯১২ সালে সুইজারল্যান্ডে প্রথম ডিজেল ইঞ্জিন তৈরি হয় এবং ১৯৩০ এর দশকে ইউরোপ ও আমেরিকায় রেলগাড়ি চলাচলের প্রধান মাধ্যম হয়ে ওঠে।

About Muhammad Faisal

Muhammad Faisal
একরাশ স্বপ্ন মুঠোয় করে হাটছি অবিরাম..........

Check Also

লন্ডন টাওয়ার বিশ্বের সর্বোচ্চ রেলপথ আইনু টেলিস্কোপ আবিষ্কার কী কেন কখন কোথায় ৩

লন্ডন টাওয়ার – বিশ্বের সর্বোচ্চ রেলপথ – আইনু – টেলিস্কোপ আবিষ্কার | কী কেন কখন কোথায় ৩

লন্ডন টাওয়ার কী? লন্ডন টাওয়ার হলো একটি বিশাল অট্রালিকা, যার মধ্যে রয়েছে অনেকগুলো দুর্গ আকৃতির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *