Home / হাতে কলমে / টিপস এন্ড ট্রিকস / বিজনেস রিলেশন কী করবেন?
বিজনেস রিলেশন কী করবেন?

বিজনেস রিলেশন কী করবেন?

আপনি যদি সফল ব্যবসায়ী হতে চান তবে প্রতিটি দিনই আপনাকে কর্মব্যস্ত থাকতে হবে। নিত্য নতুন গ্রাহকের সাথে আপনার পরিচয় হবে, তাদের সাথে গড়ে উঠবে ব্যবসায়িক সম্পর্ক। তখন আপনি নিশ্চয়ই চাইবেন আপনার সম্পর্কে তার এমন একটি ধারণা যেন তৈরি হয় যাতে ব্যবসায়িক সম্পর্কটা অটুট থাকে। এতে সফল হওয়ার জন্য আপনার উচিত প্রথমেই সহজ ও স্বাভাবিকভাবে এগিয়ে যাওয়া।

সম্ভাষণের প্রথম ধাপ

নতুন পরিচয়ের সময় আপনি যদি বসা অবস্থায় থাকেন তাহলে দাঁড়িয়ে তাকে স্বাগত জানান। এর ফলে আপনার সাথে সাক্ষাৎপ্রার্থীর দূরত্ব কমে আসবে এবং আপনার প্রতি তার কোমল ও শ্রদ্বাপূর্ণ ধারণা তৈরি হবে। যদি বসে থাকেন তবে ঐ ব্যক্তির এমন ধারণা হতে পারে যে, সে আপনার জন্য ততোটা গুরুত্বপূর্ণ নয় যতোটা হলে আপনি দাঁড়াতেন। এ ক্ষেত্রে যদি এমন হলে আপনি দাঁড়াতেন। এ ক্ষেত্রে যদি এমন হয় যে, আপনি কোনো কারণে উঠতে পারলেন না তাহলে তৎক্ষণাৎ দুঃখ প্রকাশ করুন এবং তাকে কারণটি জানান।

নির্মল হাসি উপহার দিন

আপনার মুখের ভাষার চেয়ে চেহারার ভাষা অনেক বেশি কার্যকরী হতে পারে। একবার ভাবুন, আপনার নির্মল হাসি পরিবার, বন্ধু-বান্ধবের কাছে আপনাকে কতটা গ্রহণযোগ্য করে তোলে। মানবজীবনের সব সম্পর্কেই হাসি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই আপনার সামনে দাঁড়ানো মানুষটির জন্য একটি সুন্দর ও আন্তরিক হাসি দিন। আপনার এই হাসি আপনাকে তার অনেক কাছে নিয়ে যাবে; আপনার প্রতি তার জন্মাবে ভালো ধারণা।

চোখে চোখ রাখুন

যার সাথে সাক্ষাত করছেন তার চোখের দিকে তাকান এবং প্রকাশ করুন আপনি তার প্রতি আন্তরিকভাবে আগ্রহী। অন্য কোনো কিছুর দিকে তাকিয়ে যদি ভালো কিছু আশা করেন তা হবে বোকামী, পাশাপাশি এটি আপনার উদাসীনতার বহিঃপ্রকাশরূপে গণ্য হবে। একজন চালককে যেমন তার গাড়ি চালানোর সময় নির্দিষ্ট পথের দিকে দৃষ্টি রাখতে হয় তেমনি আপনার ক্ষেত্রেও ঠিক একই কথা প্রযোজ্য।

আগে পরিচয় দিন

যতটা তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনার পরিচয় দিন। এমন আশায় দাঁড়িয়ে থাকবেন না যেন প্রথম কথা ঐ পক্ষ থেকে আসুক। নিজেই সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করুন। আপনার সাড়া আগে হলে তা হবে আপনার আত্মবিশ্বাস এর বহিঃপ্রকাশ। এর সাথে আপনার সুযোগ হলে আসবে অন্যের উপর কর্তৃত্ব স্থাপন করার।

আন্তরিকতার সাথে হাতটি বাড়ান

এরপরই ভদ্রতার  নির্দশনস্বরূপ আপনার হাতটি বাড়িয়ে দিন। যিনি  প্রথমেই  হাত বাড়াবেন তিনি তার বন্ধুভাবাপন্ন মনোভাবটি  সঠিক সময়ে  প্রকাশ করবেন। আপনি যদি কোনো কারণে দ্বিধাগ্রস্ত থাকেন তবে  তা তৎক্ষণাৎ ঝেড়ে ফেলুন। বিপরীত  লিঙ্গের  সাথে হাত  মেলানোর  অস্বস্থিকর ব্যাপারটা এখন  অনেকটাই পাল্টে  গেছে।  বাণিজ্যিক এই  যুগে সবাই বাণিজ্যের খাতিরেই  হাত  মেলায়। এখানে  ব্যক্তিগত ইচ্ছা বা অনিচ্ছা প্রকাশের কোনো সুযোগ নেই।

পরিচয় পর্বটি সহজ হোক

ব্যবসায়িক  জগতে আপনাকে  গুরুত্বপূর্ণ মানুষের সাথে চলাফেরা করতে হবে।  এ সময়  প্রথম কাজটি হবে  গুরুত্ব অনুযায়ী কম্পানির অন্যান্যদের সাথে পরিচয় পর্বটি সেরে ফেলা।  এজন্য  সভায় আগে  গুরুত্বপূর্ণ মানুষটিকে উপস্থাপন করুন  এবং তাকে পরিচয়  করয়ে দিন।  এভাবে বলতে পারেন, ‘আমি  আপনাদের সাথে পরিচয় করাতে  চাই…।  তারপর  অন্যান্যদের নাম ক্রমান্বয়ে বলুন। এটি অবশ্যই মনে  রাখবেন কাউকে পরিচয় করাতে গিয়ে তার  সম্পর্কে এমন কিছু বলবেন না, যা ব্যবসায়িক সম্পর্কে আঘাত হানে। বরং এমন কিছু তুলে ধরুন যা  তার মনোভাবকে আপনার প্রতি সুপ্রসন্ন করে।

জানতে হবে গুরুত্বপূর্ণ  কে

একথা বুঝতে হবে, আপার গ্রাহক  এ  মুহুর্তে আপনার কাছে সবচেয়ে বেশি  গুরুত্বপূর্ণ।  এমনকি তিনি  আপনার বসের  চেয়েও গুরুত্বপূর্ন। ফলে এ  সময়টুকু আপনার গ্রাহকের জন্যই ব্যয় করতে হবে। এখানে প্রশ্ন থেকে যায় আপনার বস এটি আদৌ পছন্দ করবেন কি না। কিন্তু একথা নিশ্চয়ই স্বীকার করবেন আপনার কাজ  যদি ব্যবসা  প্রতিষ্ঠানের সাফল্য বয়ে আনে তবে সেক্ষেত্রে আপনার বস আপনার প্রতি সন্তুষ্টেই হবেন। আর অন্যরা আপনাকে দেখে অনুপ্রাণিত হবে।

নাম মনে রাখুন

আপনাকে যেহেতু পদবী অনুযায়ী কথা বলতে হবে তাই সবার নাম জানা জরুরি এবং সম্ভাষণের সময় তা কাজে লাগবে। কোনো কথা শেয়ার করার সময় আপনাকে সবার নামের ব্যাপারে যত্নবান হতে হবে। কারো নাম ভুল উচ্চারণ করা থেকে বিরত থাকুন। কেননা এর ফলে আপনার মানসিক দুর্বলতা প্রকাশ পাবে। আপনার প্রথম লক্ষ্যই হচ্ছে খুব কম সময়ের মধ্যে কাঙ্ক্ষিত ব্যক্তিবর্গের মনোভাব জেনে নেওয়া এবং তাদের সন্তুষ্ট করা যাতে তারা আপনার বা আপনার প্রতিষ্ঠানের সাথে ব্যবসায়িক সম্পর্ক স্থাপনে আগ্রহী হন। আপনি যদি এই পদ্বতিগুলো ব্যবসায়িক সম্পর্ক গড়া আপনার জন্য অনেকটাই সহজ হয়ে যাবে।

About Parves Ahmed

Parves Ahmed
অনুকরণ নয়, অনুসরণ নয়, নিজেকে খুঁজে চলেছি, নিজেকে জানার চেষ্টা করছি, নিজের পথে হেটে চলছি॥

Check Also

​মেজাজ ঠিক রাখার ৫ উপায়

​মেজাজ ঠিক রাখার ৫ উপায়

ক্ষণিকের দুঃসংবাদে মলিন হতে পারে হাসিমুখ। মন খারাপ হতে পারে। বিষণ্নতা এসে ভর করতে পারে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *