Breaking News
Home / ফিচার / জীবনযাপন / উচ্চস্বরের কথায় বাড়ে মস্তিষ্কের নিষ্ক্রিয়তা
উচ্চস্বরের কথায় বাড়ে মস্তিষ্কের নিষ্ক্রিয়তা

উচ্চস্বরের কথায় বাড়ে মস্তিষ্কের নিষ্ক্রিয়তা

মস্তিষ্কের যে অংশটি মানুষের কথাবার্তা নিয়ন্ত্রণ করে, উচ্চস্বরে কথা বলার সময় সেই অংশটি পুরোপুরি নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ে। মেরিল্যান্ডের জন হপকিন্স ও ক্যালিফোরনিয়ার বার্কলে বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের গবেষণায় উঠে এসেছে এই চমকপ্রদ তত্ত্ব। তারা জানিয়েছেন, মস্তিষ্কের যে অঞ্চলটি অর্থাৎ ব্রোকাস ভোকালাইগেশন সহ মানুষের কথাবার্তা সম্পূর্ণভাবে নিয়ন্ত্রণ করে, জোরে জোরে কথা বলার সময় এটি কাজই করে না।

মস্তিষ্কের নিষ্ক্রিয়তায় কর্মক্ষমতা লোপ পাওয়াসহ মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে। গবেষণাপত্রের অন্যতম লেখক এডিন ফ্লিঙ্কার বলেন, বক্তৃতা দেওয়ার সময় ব্রোকাস অঞ্চলটি কাজ করা বন্ধ করে দেয়। কিন্তু আস্তে আস্তে কথা বলা ও একটি সম্পূর্ণ বাক্য বলার সময় এটি সক্রিয় থাকে। স্নায়ুবিজ্ঞানীদের আবিষ্কৃত তত্ত্ব অনুযায়ী, মস্তিষ্কের ভাষা নিয়ন্ত্রক সেন্টারকে দুই ভাগে ভাগ করা হয়। একটি অঞ্চল বক্তব্য বোঝার জন্য ও অন্য একটি অঞ্চল বক্তব্য পেশ করাকে নিয়ন্ত্রণ করে।

এই আবিষ্কারে প্রমাণিত হয়, যে ব্রোকাস অঞ্চল মোটেও বক্তব্য তৈরিকে নিয়ন্ত্রণ করে না। এই অঞ্চলটি মূলত মস্তিষ্কের বিভিন্ন অংশের তথ্যের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে। স্ট্রোক, মস্তিষ্কে আঘাত বা মৃগীর ফলে কথা বলায় যে সমস্যা তৈরি হয়, এই আবিষ্কার তা সমাধানে অনেকাংশে সাহায্য করবে বলে আশা করছেন বিজ্ঞানীরা।

About Parves Ahmed

Parves Ahmed
অনুকরণ নয়, অনুসরণ নয়, নিজেকে খুঁজে চলেছি, নিজেকে জানার চেষ্টা করছি, নিজের পথে হেটে চলছি॥

Check Also

নাক দিয়ে রক্ত ক্ষরণ হলে দ্রুত কী করবেন

নাক দিয়ে রক্ত ক্ষরণ হলে দ্রুত কী করবেন?

প্রশ্ন : হঠাৎ করে নাক দিয়ে রক্তক্ষরণ হলে আতঙ্কিত হওয়ার মতো বিষয় ঘটে। নাক দিয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *