Home / পড়ার বিষয় / ম্যাটেরিয়ালস সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিষয়ে পড়াশোনা
ম্যাটেরিয়ালস সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিষয়ে পড়াশোনা

ম্যাটেরিয়ালস সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিষয়ে পড়াশোনা

আমাদের মতো উন্নয়নশীল দেশের দ্রুত অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য বস্তুবিজ্ঞানভিত্তিক শিল্পায়নের গুরুত্ব অপরিহার্য। এ বিষয়ে পড়াশোনা করে বস্তুবিজ্ঞানভিত্তিক শিল্পকে সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি নানামুখী কেরিয়ার গড়ার সুযোগ পাবেন আপনি। লিখেছেন – মোঃ সেলিম রেজা।

বর্তমান সময়কে বস্তু বিকাশের যুগ বললে বাড়িয়ে বলা হবে না একটুও। মানবসভ্যতার আজকের এ পর্যায়ে পৌছাতে একং ক্রমবর্ধমান বিস্ময়কর অগ্রগতির পেছনে স্বতন্ত্রভাবে বস্তুবিজ্ঞানের ভিত আগাগোড়াই সবল। আর Information Technology’র অগ্রযাত্রা বস্তুবিজ্ঞান ছাড়া ভাবাই দায়। হাইটেক প্রযুক্তির বহুলাংশ উন্নততর বস্তুর উদ্ভাবন ও সার্বিক প্রয়োগের ফসল। আর এই বস্তুবিজ্ঞানই হলো Material Science।

কোথায় পড়বেন

বস্তুবিজ্ঞান এককালে পদার্থ ও রসায়ন শাস্ত্রে দীর্ঘদিন খন্ডিতভাবে পড়ানো হতো। যৌক্তিক করণে এসব ক্ষেত্রে বস্তুবিজ্ঞানের বিশালতা নিয়ে গবেষণা করার উপায় ‍ছিলো না। অথচ আমাদের মতো দারিদ্র্য পীড়িত দেশে দ্রুত অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য বস্তু শিল্পের উপর জোর দেওয়া আবশ্যক হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বস্তুর গঠন, ধর্ম, উদ্ভাবন, প্রক্রিয়াকরণ ও প্রয়োগ নিয়ে বিজ্ঞানের এই শাখাটি কাজ করে। মেটাল, প্লাস্টিক সিরামিকস, কম্পোজিট ম্যাগনেট এবং সেমিকনডাকটিভ ম্যাটেরিয়ালস বস্তুবিজ্ঞানের অর্ন্তভূক্ত। ইঞ্জিনিয়ারিং বা টেকনোলজিক্যাল এপ্লিকেশন ছাড়াও মানুষের দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত রান্নাঘরের সামগ্রী থেকে শুরু করে প্লাস্টিকের পাইপ, স্টেলিভিশনের বডি, মাইক্রোপ্রসেসরসহ ইলেকট্রনিক্স কম্পোনেন্টের সাবসট্রেট ইত্যাদিতে উল্লেখিত বস্তুগুলোর অপরিহার্য প্রয়োগ লক্ষ্যণীয়।

এ বিষয়টি মাথায় রেখেই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বস্তুবিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নামক ‍বিভাগটি ২০০৪ সালে বিজ্ঞান অনুষদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়। প্রয়োজনীয় শর্ত পূরণ সাপেক্ষে ঢাকা প্রকৌশল প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়েও এ বিষয়ে পড়াশোনার সুযোগ রয়েছে।

কোর্সের মেয়াদ ও বিষয়সমূহ

মেটালের ক্রিস্টালোগ্রাফি অ্যান্ড মাইক্রোস্ট্রাকচার, ফিজিক্যাল কেমিস্ট্রি, বায়োকেমেস্ট্রি, মেকানিকস, ওয়েভ অ্যান্ড সাউন্ড, ইলেকট্রিসিটি অ্যান্ড ইন্ট্রিগাল ক্যালকুলাস, কম্পোজিট ম্যাটেরিয়ালস, প্লাস্টিক অ্যান্ড রাবার, ফাইবার টেকনোলজি, ম্যাটেরিয়াল ম্যানেজমেন্ট, গ্লাস অ্যান্ড অপটিকাল ম্যাটেরিয়ালস, ইকোনমিক অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল ইস্যু ইত্যাদি ছাড়াও ম্যাটেরিয়ালস মডেলিং ও ডিজাইনের উপর কম্পিউটার এপ্লিকেশনও এ বিষয়ের অন্তর্ভুক্ত।

চার বছর মেয়াদী অনার্স কোর্সটিতে ৪০টি ইউনিট ও ১৬০ ক্রেডিট পড়ানো হয়। মোট নাম্বার ৪ হাজার। এর মধ্যে ভাইভা- ২০০, ইনপ্ল্যান্ট ট্রেনিং- ৫০, প্রজেক্ট ওয়ার্ক- ৫০, টিউটোরিয়াল টারমিনাল, টারমিনাল ক্লাস এ্যাটেন্ডেন্স- ২০০ ছাড়াও শুধুমাত্র ১ম বর্ষের ইংরেজিতে ৫০ নাম্বারের পরীক্ষা হয়।

ভর্তি যোগ্যতা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ম্যাটেরিয়াল সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই এইচএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগে উত্তীর্ণ হতে হবে। এক্ষেত্রে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয় ব্যতীত মোট জিপিএ ৬.৫ থাকতে হবে। এছাড়া প্রার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক বিজ্ঞাপিত ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের অন্যান্য শর্ত অবশ্যই পূরণ করতে হবে।

ভর্তি প্রক্রিয়া

এমসিকিউ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পদার্থ ৩০, রসায়ন ৩০; মোট ৬০ নাম্বারের পরীক্ষায় ১০০টি প্রশ্নের উত্তর ‍দিতে হবে। সময় ১ ঘন্টা। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য নাম্বার কাটা যাবে .২৫।

ভর্তি পরীক্ষায় প্রাপ্ত নাম্বারের সাথে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষার্থীর এসএসসি ও এইচএসসি’র মোট জিপিএ স্কোর যোগ করে চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

কেরিয়ার সম্ভাবনা

ম্যাটেরিয়ালস সায়েন্স ডিগ্রিধারীরা অন্যান্যদের মতোই দেশের যে কোনো সেক্টরে চাকরির সুযোগ গ্রহণ করতে পারেন। দেশে ম্যাটেরিয়াল সায়েন্স ভিত্তিক শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে, সে সব ক্ষেত্রে প্রফেশনাল হিসেবে তাদেরকে অগ্রাধিকার দেয়া হয়। এছাড়াও সাম্প্রতিক বিকাশমান রেডিও, টেলিভিশন, টেলিফোন, ফ্রিজের টেকনোলজি ডিভিশনে বিশেষজ্ঞ ও সুদক্ষ জনবলের অংশগ্রহণ আবশ্যক হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে বলা যায় এই বিষয়ের ডিগ্রিধারীদের দেশেই কেরিয়ার গড়ার ভাল সম্ভাবনা রয়েছে। তাছাড়া উন্নত দেশের আকর্ষণীয় চাকরির ক্ষেত্রগুলো সবসময়ই উন্মুক্ত।

About Parves Ahmed

Parves Ahmed
অনুকরণ নয়, অনুসরণ নয়, নিজেকে খুঁজে চলেছি, নিজেকে জানার চেষ্টা করছি, নিজের পথে হেটে চলছি॥

Check Also

পড়ুন ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস

পড়ুন ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস

বিশ্ব অর্থনীতির অনেকটাই নির্ভর করে ব্যবসা-বানিজ্যের উপর। ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস পড়ে বিভিন্ন মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে ক্যারিয়ার গড়ার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *